Druto birjopat er somadhan, Monss মন, কতটুকু বীর্য পড়লে বাচ্চা হয়, কাম রস খেলে কি হয়, কামরস বন্ধ করার উপায়, কি খেলে বীজ ঘন হয়, কি খেলে মাল দেরিতে বের হবে, ট্যাবলেট টাইমেক্স এর কাজ কি, দ্রুত পতনের হোমিও চিকিৎসা, দ্রুত বীযপাতের হোমিও ঔষধ, দ্রুত বীযপাতের হোমিও চিকিৎসা, দ্রুত বীর্য পাতের হোমিও চিকিৎসা, নাইট কিং, পেলভিক ফ্লোর মাসল, বীর্য কিভাবে তৈরি হয়, বীর্য বাড়ানোর উপায়, বীর্য বের হয় না, মেয়েদের বীর্য খাওয়ার উপকারিতা, শীঘ্র পতন বন্ধ করার উপায়, শীঘ্র পতন রোধ করার উপায়, শীঘ্র পতনের ঔষধ, শীঘ্রপতন বন্ধ করার ঔষধ, শুক্রাণুর সংখ্যা কত, শ্রীঘ্র পতন, স্কুইজ পদ্ধতি, হস্ত মৈথুন সম্পর্কে প্রচলিত কিছু ভুল ধারনা, হস্ত মৈথুনের চিকিৎসা

Druto birjopat er somadhan? Male/ Female Sexual issue বীর্যপাত সমস্যার কারণ, দ্রুত বীর্যপাত সমস্যার উপসর্গ কি কি

বীর্যপাত সমস্যার কারণ- কোনো নারী-পুরুষ যখন যৌন সঙ্গম শুরু করার আগেই কিংবা যৌনসঙ্গম শুরুর একটু পরেই যদি পুরুষের বীর্যপাত ঘটে যায় – তাহলে পুরুষটির ক্ষেত্রে যে সমস্যাটি বুঝায় তার নাম প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন সহজ বাংলায় যাকে বলা হয় দ্রুত বীর্যপাত।দ্রুত বীর্যপাত পুরুষদের একটি সাধারণ যৌনগত সমস্যা। পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, প্রতি তিনজন পুরুষের মধ্যে একজনই দ্রুত বীর্যপাত সমস্যায় ভোগে থাকেন।

 

druto birjopat er somadhan akhane deua ace sundor vabe. Jodi karo druto birjopat er somadhan khujen, tahole sundor vabe ai article ta monojog dia porben, asa korci druto birjopat er somadhan peye jaben. druto birjopat er somadhan kintu ato easy and quick hoi na..az medicine kheye azoi druto birjopat er somadhan hobe na. mone rakhben.

কামরস বন্ধ করার উপায়

কামরস বন্ধ করার উপায় অনেক! তবে যুবক বয়সে কামরস বন্ধ করা খুব টপ্ বেপার! কারণ এই মুহূর্তে নতুন যৌবনে পদার্পন সে কারণে কত গুলা নিয়ম অনুসরণ করলে কামরস বন্ধ করার উপায় পাওয়া যাবে ! কামরস বন্ধ করার উপায় গুলোর বেশি ভাগ এ আমরা করি এজন্য কামরস বন্ধ করাএত সহজ কাজ না ! যেমন সেক্স ভিডিও না দেখা ! অশ্লীল ছবি থেকে দূরে থাকা ! যে দেখলে উত্তেজিত হওয়ার আশংকা থাকে সেগুলা না দেখা বা ওই কাজ গুলা না করা !কামরস বন্ধ করার উপায় সহজ কিন্তু মেনে চলা খুব কঠিন ! যেহেতু এগুলা কাজ আমাদের হ্যাবিট হইয়া গেসে ! সেগুলা কারা এত সহজ কাজ না !

 

একসময়ে ধারণা করা হতো যে, দ্রুত বীর্যপাতের কারণ হলো সম্পূর্ণ মানসিক, কিন্তু বর্তমানে বিশেষজ্ঞদের মতে, দ্রুত বীর্যপাতের ক্ষেত্রে শারীরিক বিষয়গুলোও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।কিছু পুরুষের ক্ষেত্রে দ্রুত বীর্যপাতের সাথে পুরুষত্বহীনতার সম্পর্ক রয়েছে। বর্তমানে অনেক চিকিৎসা বেরিয়েছে – যেমন বিভিন্ন মনস্তাত্ত্বিক কাউন্সেলিং ও বিভিন্ন যৌন পদ্ধতির শিক্ষা। কিন্তু দেখা গেছে এগুলোরই কোনই অধিকাংশের ক্ষেত্রেই কোনো ফল দেয় না ।

🤒দ্রুত বীর্যপাত সমস্যার উপসর্গ কি কি :-পুরুষের বীর্যপাত হতে কতটা সময় নেবে সে ব্যাপারে চিকিৎসা বিজ্ঞানে আদর্শ মাপকাঠি নেই। দ্রুত বীর্যপাতের প্রাথমিক লক্ষণ হলো নারী-পুরুষ উভয়ের পুলক লাভের আগেই পুরুষটির বীর্যপাত ঘটে যাওয়া। এ সমস্যা সব ধরনের যৌনতার ক্ষেত্রে ঘটতে পারে। এমনকি হস্তমৈথুনের সময়ও কিংবা শুধু যৌনমিলনের সময়ও।

👉দ্রুত বীর্যপাত সমস্যাকে দু’ ভাগে ভাগ করা হয় :-

👉প্রাইমারি প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন :– এটি হলো আপনি যৌন সক্রিয় হওয়া মাত্রই বীর্যপাত ঘটে যাওয়া।

👉সেকেন্ডারি প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন :– এ ক্ষেত্রে আগের বা প্রথম দিকের যৌনজীবন তৃপ্তিদায়কই ছিল, বর্তমানে দ্রুত বীর্যপাত ঘটছে।

🧐পুরুষের দ্রুত বীর্যপাতের কারণ :- কী কারণে দ্রুত বীর্যপাত হচ্ছে তা নিরূপণ করতে বিশেষজ্ঞরা এখন পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। একসময় ধারণা করা হতো, এটা সম্পূর্ণ মানসিক ব্যাপার। কিন্তু বর্তমানে জানা যায়, দ্রুত বীর্যপাত হওয়া একটি জটিল বিষয় এবং যার সাথে মানসিক ও জৈবিক দু’টিরই সম্পর্ক রয়েছে।

জৈবিক কারণ :- বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন, কিছুসংখ্যক জৈবিক বা শারীরিক কারণে দ্রুত বীর্যপাত ঘটতে পারে। এসব কারণের মধ্যে রয়েছে-
হরমোনের অস্বাভাবিক মাত্রা মস্তিষ্কের রাসায়নিক উপাদান বা নিউরোট্রান্সমিটারের অস্বাভাবিক মাত্রা বীর্যস্খলনে অস্বাভাবিক ক্রিয়া থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যা প্রোস্টেট অথবা মূত্রনালীর প্রদাহ ও সংক্রমণ বংশগত চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য

 

স্তনে ব্যথা মানেই ক্যানসার নয়, নারীর স্তনে ব্যথা, ডান দুধে ব্যাথা

 

মানসিক কারণ :- কিছু চিকিৎসক বিশ্বাস করেন, প্রথম বয়সে যৌন অভিজ্ঞতা ঘটলে তা এমন একটি অবস্থায় পৌছে যে, পরবর্তী যৌন জীবনে সেটা পরিবর্তন করা কঠিন হতে পারে। যেমন-লোকজনের দৃষ্টিকে এড়ানোর জন্য তড়িঘড়ি বা তাড়াতাড়ি করে চরম পুলকে পৌঁছানোর তাগিদ, দ্রুত বীর্যপাত সমস্যার উপসর্গ কি কি। অপরাধ বোধ, যার কারণে যৌনক্রিয়ার সময় হঠাৎ করেই বীর্যপাত ঘটে যায়। অন্য কিছু বিষয়ও আপনার দ্রুত বীর্যপাত ঘটাতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে:

পুরুষাঙ্গের শিথিলতা :- যেসব পুরুষ যৌনমিলনের সময় তাদের লিঙ্গের উত্থান ঠিকমতো হবে কি না কিংবা কতক্ষণ লিঙ্গ উত্থিত অবস্থায় থাকবে এসব বিষয় নিয়ে চিন্তিত পুরুষের দ্রুত বীর্যস্খলন ঘটে।

দুশ্চিন্তা :- অনেক পুরুষের দ্রুত বীর্যপাতের একটি প্রধান কারণ দুশ্চিন্তা। সেটা যৌনকাজ ঠিকমতো সম্পন্ন করতে পারবেন কি না সে বিষয়ে হতে পারে। আবার অন্য কারণেও হতে পারে। দ্রুত বীর্যপাতের আরেকটি প্রধান কারণ হলো অতিরিক্ত উত্তেজনা।

নিচের কারণগুলোর জন্যও দ্রুত বীর্যপাত ঘটতে পারে :-

সার্জারি বা আঘাতের কারণে স্নায়ুতন্ত্রের ক্ষতি হওয়া।মাদক বা নারকোটিকস কিংবা দুশ্চিন্তার চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধ ট্রাইফ্লুপেরাজিন প্রত্যাহার করা এবং অন্য মানসিক সমস্যা থাকা।বেশির ভাগ প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশনের ক্ষেত্রে শারীরিক ও মানসিক দু’টি বিষয়ই দায়ী। তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন প্রাথমিকভাবে সবচেয়ে দায়ী হলো শারীরিক কারণ যদি সেটা জীবনভর সমস্যা হয়ে থাকে ।

দ্রুত বীর্যপাতে ঝুঁকি বাড়াতে পারে যেসব বিষয় :-

স্বাস্থ্যগত সমস্যা :- যদি এমন স্বাস্থ্যগত সমস্যা থাকে যার কারণে যৌনমিলনের সময় উদ্বেগ অনুভব করে যথা- হৃদরোগ থাকে। এতেও দ্রুত বীর্যপাতের ঘটনা ঘটতে পারে।

পুরুষাঙ্গের শিথিলতা :- লিঙ্গ ঠিকমতো উত্থিত না হয়, মাঝে মাঝে উত্থিত হয় অথবা উত্থিত হয় কিন্তু বেশিক্ষন এ অবস্থায় না থাকে তাহলে দ্রুত বীর্যপাত ঘটার ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে। যৌনসঙ্গমের সময় লিঙ্গের উত্থান অবস্থা বেশিক্ষণ থাকবে না, এমন ভয়ও দ্রুত বীর্যপাত ঘটাতে পারে।

মানসিক চাপ :- আবেগজনিত কারণ কিংবা মানসিক চাপ দ্রুত বীর্যস্খলনের ব্যাপারে ভূমিকা রাখে।

ওষুধ :- ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবেও দ্রুত বীর্যস্খলন ঘটাতে পারে।
কখন চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন:
বেশির ভাগ যৌনমিলনের সময় যদি আপনি আপনার ও আপনার সঙ্গিনীর আকাক্সক্ষার চেয়ে দ্রুত বীর্যপাত করে ফেলেন তাহলে চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন। আপনার যৌনজীবন মধুর করতে চিকিৎসার প্রয়োজন হতে পারে।

 

পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও রোগ নির্ণয়:

চিকিৎসক আপনার বিস্তারিত যৌন ইতিহাস জেনে তার ওপর ভিত্তি করে দ্রুত বীর্যপাত রোগ নির্ণয় করেন। চিকিৎসক আপনাকে অনেক একান্ত ব্যক্তিগত প্রশ্ন জিজ্ঞেস করতে পারেন এবং আপনার সঙ্গিনীকেও উপস্থিত থাকতে বলতে পারেন। যদিও সেক্স সম্পর্কে খোলাখুলি কথা বলতে আপনাদের দু’জনেরই অস্বস্তিবোধ হতে পারেন তবুও বিস্তারিত আলোচনার মাধ্যমে চিকিৎসক আপনার সমস্যার কারণ নিরূপণ করতে সাহায্য করবেন এবং সবচেয়ে ভালো চিকিৎসা দিতে পারবেন।

 

 

আপনার চিকিৎসক আপনার স্বাস্থ্যের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে চাইতে পারেন। তিনি আপনার সাধারণ শারীরিক পরীক্ষা করতে পারেন।

আপনার চিকিৎসক আপনার কাছে এসব প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইতে পারেন :
কত দ্রুত আপনার বীর্যপাত ঘটে?
একজন বিশেষ সঙ্গিনীর বেলায় কি আপনার দ্রুত বীর্যপাত হয়?
আপনি যতবার যৌনমিলন করেন, ততবারই আপনার দ্রুত বীর্যপাত ঘটে?
আপনি কতবার যৌনমিলন করেন?
দ্রুত বীর্যপাত আপনার যৌন আনন্দ লাভে এবং আপনার সার্বিক জীবনে কতটা বিরূপ প্রভাব ফেলে?
আপনার লিঙ্গ উত্থান হতে কিংবা দীর্ঘ সময় উত্থান অবস্থায় থাকতে কি সর্বদা সমস্যা হয়?
আপনি এ সমস্যার জন্য কী কী ওষুধ গ্রহণ করেন?
আপনার দ্রুত বীর্যপাতের কারণ উদঘাটন করতে আপনার কিছু মানসিক বিষয়ও জানা প্রয়োজন।
চিকিৎসক আপনার নিম্নোক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে চাইতে পারেন :
আপনার ধর্মীয় শিক্ষাদীক্ষা
আপনার প্রাথমিক যৌন অভিজ্ঞতা
আপনার অতীত ও বর্তমানের যৌনসম্পর্ক
আপনার বর্তমান সম্পর্কের মধ্যে কোনো সংঘর্ষ
যদি আপনার দ্রুত বীর্যপাত ঘটতে থাকে এবং আপনার লিঙ্গোত্থানে সমস্যা হয়, তাহলে আপনার চিকিৎসক আপনার পুরুষ হরমোনের মাত্রা (টেস্টোস্টেরন) দেখার জন্য আপনার রক্ত পরীক্ষাসহ আরো কিছু পরীক্ষা করতে দিতে পারেন।
যেহেতু পুরো প্রক্রিয়াটি দীর্ঘমেয়াদি,,তাই চিকিৎসক এর উপর আস্থা রেখে সম্পূর্ণ চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে।।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *